যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যের বিবৃতি নিয়ে সরকার চিন্তিত নয়


ওহাইও সংবাদ প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ৯, ২০২৪, ১০:৪২ অপরাহ্ণ /
যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্যের বিবৃতি নিয়ে সরকার চিন্তিত নয়

ওহাইও সংবাদ : পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু হয়েছে। অনেক প্রতিকূলতার মধ্যে জনগণ ভোট দিয়েছে এটাই যথেষ্ট। এ নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মন্তব্যের বিষয়ে সরকার চিন্তিত নয়।

মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) ঢাকায় ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে বিদেশি কূটনীতিক-পর্যবেক্ষকদের ব্রিফিং শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলোচনার সময় মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত প্রায় ৫০ দেশের রাষ্ট্রদূত ও হাইকমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন। তাদের মধ্যে মার্কিন রাষ্ট্রদূত পিটার হাস, ব্রিটিশ হাইকমিশনার সারাহ কুক, চীনের রাষ্ট্রদূত ইয়াও ওয়েন এবং রাশিয়া, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন, জার্মানসহ ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূতরা উপস্থিত ছিলেন।

নির্বাচন নিয়ে যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রের মন্তব্য প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ড. মোমেন আরও বলেন, এগুলো নিয়ে চিন্তা নেই। জনগণ রায় দিয়েছে এবং অন্যান্য দেশ যারা বাংলাদেশের পক্ষে এসেছে, তারা সবাই বলেছে, নির্বাচন অবাধ হয়েছে।

তিনি বলেন, তারা (যুক্তরাষ্ট্র-যুক্তরাজ্য) বলেছে যে, নির্বাচনের আগে কিছু সংঘাত হয়েছে। বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের যে সম্পর্ক আছে, সেটা বলবৎ রাখবে। তবে তারা মানবাধিকারের যে বিষয়টির কথা বলেছে, সেটা ডায়নামিক ইস্যু। এগুলোর কোনো শেষ নেই। সরকার এসব বিষয় নিয়ে কাজ করছে।

মন্ত্রী বলেন, নির্বাচনে কোনো কারিগরি ত্রুটি ছিল কিনা, বিদেশি পর্যবেক্ষকরা তা দেখেছেন। বাংলাদেশের বহু নির্বাচন দেখেছি। আমার মনে হয়, এবারের নির্বাচন আদর্শ নির্বাচন।

বিদেশি বন্ধু রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের যে অংশীদারিত্ব রয়েছে, সেটি নতুন সরকারের সঙ্গে অব্যাহত থাকবে বলে প্রত্যাশা করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, নতুন বছরে সব দেশের সঙ্গে ভালো সহযোগিতা ও অংশীদারত্ব প্রত্যাশা করছি। এ প্রক্রিয়ার মধ্যদিয়ে নিজস্ব লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব। একটি ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে পারব। অংশীদারত্ব ও সহযোগিতামূলক সম্পর্ক ছাড়া আমরা এগুলো অর্জন করতে পারব না।

অনুষ্ঠানে রাশিয়ার রাষ্ট্রদূত আলেকজান্ডার মন্টিটস্কি বলেন, আমাদের পর্যবেক্ষকদের সঙ্গে আলাপ করব। তাদের দেওয়া প্রতিবেদনের ভিত্তিতে নির্বাচন নিয়ে মন্তব্য করা হবে।

জার্মানির রাষ্ট্রদূত আখিম ট্র্যোস্টার বলেন, নির্বাচন শান্তিপূর্ণ হয়েছে বলে আমরা খুশি। বিশ্বস্ত অংশীদার হিসেবে নতুন বছরে বাংলাদেশের জনগণের পাশে থাকবে জার্মানি। বাংলাদেশের সঙ্গে আগামী দিনের উন্নয়ন সহযোগিতা আরও বাড়বে বলে প্রত্যাশা করেন আখিম।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত চার্লস হোয়াইটলি বলেন, এখনই নির্বাচন নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে চাই না। এ বিষয়ে সপ্তাহখানেকের মধ্যে ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে একটি বিবৃতি ইস্যু করা হবে।