বর্জন ৪৫ প্রার্থীর, স্থগিত ২১ কেন্দ্রের ভোট


ওহাইও সংবাদ প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ৭, ২০২৪, ১০:৪৭ অপরাহ্ণ /
বর্জন ৪৫ প্রার্থীর, স্থগিত ২১ কেন্দ্রের ভোট

ওহাইও সংবাদ : দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করেছেন ৪৫ প্রার্থী। ভোটকেন্দ্র দখল, জাল ভোট প্রদান, এজেন্টদের কেন্দ্র থেকে বের করে দেওয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগ তুলে এ ঘোষণা দিয়েছেন তারা। তাদের মধ্যে জাতীয় পার্টি, বিএনএম, তৃণমূল বিএনপি, গণফোরামের দলীয় প্রার্থীদের পাশাপাশি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ভোটের লড়াইয়ে নামা আওয়ামী লীগের নেতাও আছেন। অনিয়মের কারণে স্থগিত করা হয়েছে ২১টি কেন্দ্রের ভোট। এ ছাড়া জাল ভোট দেওয়াসহ বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগে অন্তত ৩৪ জনকে আটকের খবর পাওয়া গেছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড ও জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ছাড়া কয়েকজন প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

সিলেট বিভাগ
সিলেট-২ আসনে চার প্রার্থী একসঙ্গে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা হলেন গণফোরামের প্রার্থী বর্তমান এমপি মোকাব্বির খান, স্বতন্ত্র প্রার্থী মুহিবুর রহমান, জাতীয় পার্টির প্রার্থী ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া ও তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুর রব। সিলেট-৩ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. ইহতেশামুল হক চৌধুরী দুলাল ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আতিকুর রহমান আতিক এবং সিলেট-৪ আসনে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী আবুল হোসেন

নির্বাচন বর্জন করেছেন। তারা জাল ভোটসহ নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলেছেন।
মৌলভীবাজারের তিনটি আসনে ছয় প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। তারা হলেন মৌলভীবাজার-১ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আহমেদ রিয়াজ, মৌলভীবাজার-২ আসনে তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী সাবেক এমপি এম এম শাহীন ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এ কে এম শফি আহমদ সলমান, মৌলভীবাজার-৩ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলতাফুর রহমান, পিপলস পার্টির অ্যাডভোকেট আবু বকর ও বাংলাদেশ ফ্রন্টের আবদুর রউফ। এদিকে মৌলভীবাজার-১ আসনের একটি কেন্দ্রে জাল ভোট দিতে যাওয়া দুই কিশোরকে আটক করা হয়েছে।
ব্যালট পেপার নিয়ে সিল মারায় সুনামগঞ্জ-৪ (সদর-বিশ্বম্ভরপুর) আসনের মোহনপুর কেন্দ্রের নৌকার পোলিং এজেন্ট সাইদুল আমিনকে তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

চট্টগ্রাম বিভাগ
অনিয়ম-কারচুপির অভিযোগে কুমিল্লার ছয় প্রার্থী নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। তারা হলেন কুমিল্লা-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার নাঈম হাসান ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী আমির হোসেন ভূঁইয়া, কুমিল্লা-৭ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মুনতাকিম আশরাফ টিটু, কুমিল্লা-১০ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী জোনাকি মুন্সি ও গণফোরামের প্রার্থী শহীদুল ইসলাম ভূঁইয়া এবং কুমিল্লা-১১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান। এ ছাড়া কেন্দ্র দখল ও বেশ কিছু কেন্দ্রে নৌকায় সিল মারার অভিযোগে দেবিদ্বারের একটি কেন্দ্র ও চৌদ্দগ্রামে সাতটি কেন্দ্রের ভোট বাতিল করা হয়েছে।
বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ তুলে কক্সবাজারে চার প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। তারা হলেন কক্সবাজার-১ (চকরিয়া-পেকুয়া) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ও বর্তমান এমপি জাফর আলম, কক্সবাজার-৩ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ব্যারিস্টার মিজান সাইদ, কক্সবাজার-৪ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী নুরুল আমিন সিকদার ও স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল বশর।

চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসনের ৫০টি কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের মারধর করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন ঈগল প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী হুইপ সামশুল হক চৌধুরী। ওই আসনে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের প্রার্থী মুহাম্মদ হামিদ উল্লাহ (মোমবাতি) নির্বাচনে কারচুপি ও ভোটকেন্দ্র থেকে তাঁর এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ তুলেছেন।

রাজশাহী বিভাগ
এজেন্টদের বের করে দেওয়া, নৌকা প্রতীকে জাল ভোট প্রদানসহ নানা অভিযোগ তুলে নির্বাচন বর্জন করেছেন পাবনা-২ আসনে বিএনএমের প্রার্থী সংগীতশিল্পী ডলি সায়ন্তনী। পাবনা-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) পাঞ্জাব আলী বিশ্বাস কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেছেন। জালিয়াতির অভিযোগে নির্বাচন বর্জন করেছেন পাবনা-৫ আসনের ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী জাকির হোসেন।

ভোটে হেরে অনিয়মের অভিযোগ তুলে নির্বাচন বর্জন করেছেন বগুড়া-৪ আসনে বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী আশরাফুল হোসেন আলম ওরফে হিরো আলম। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ আসনে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী আন্দোলনের (বিএনএম) প্রার্থী মোহাম্মদ আবদুল মতিন ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।

এদিকে প্রভাব বিস্তারের অভিযোগে ঈশ্বরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে তিনজনকে আটক করা হয়েছে। আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে নাটোর-১ আসনের একটি ভোটকেন্দ্র থেকে গতকাল রেজাউল করিম নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। তিনি লালপুর উপজেলার চংধুপইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ওই আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থীর (ঈগল) কর্মী।
সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের বেলকুচির আলহাজ সিদ্দিক উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) আবদুল লতিফ বিশ্বাসের কর্মী। নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে ভোট স্থগিত ও পুনর্নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হালিমুল হক মিরু।
এদিকে জাল ভোট দেওয়ায় সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের রায়গঞ্জ উপজেলায় তিনজনকে ছয় মাস করে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। এ ছাড়া সিরাজগঞ্জ-৫ আসনের বেলকুচির আমবাড়িয়া কেন্দ্রে প্রবেশ করায় নৌকা প্রতীকের সমর্থক আমিরুল ইসলামকে আটকের পর মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দিয়েছে পুলিশ।

রংপুর বিভাগ
অনিয়মের অভিযোগ তুলে কুড়িগ্রাম-৪ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী সাইফুর রহমান বাবলু ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মজিবুর রহমান বঙ্গবাসী ভোট বর্জন করেছেন। কুড়িগ্রাম-৩ আসনের মণ্ডলের হাট উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে মাহাতাব হোসেন রুদ্র নামে একজনকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড ও তিন হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে ওই কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মোখলেছুর রহমানকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।
ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ তুলে লালমনিরহাট-২ আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী দেলোয়ার হোসেন ভোট বর্জন করেছেন। এ ছাড়া ভোট বর্জন করেছেন লালমনিরহাট-১ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী (ঈগল) জাবেদ হোসেন বক্কর।

গাইবান্ধা-৫ আসনে সাঘাটা উপজেলার নশিরারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে দুই কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ। সংবাদ সম্মেলন করে ভোট বাতিলের দাবি জানিয়েছেন গাইবান্ধা-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী মনোয়ার হোসেন চৌধুরী। তাঁর অভিযোগ, নৌকা প্রার্থীর সমর্থকরা মারধর করে কেন্দ্র থেকে তাঁর এজেন্টদের বের করে দিয়েছে।

খুলনা বিভাগ
অনিয়ম, কারচুপি ও নৌকার এজেন্টদের বিরুদ্ধে ভয়ভীতি দেখানোর অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেছেন যশোর-১ (শার্শা) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী আশরাফুল আলম লিটন। একই অভিযোগে বাগেরহাট-৪ আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী এম আর জামিল হোসাইন (ঈগল) ভোট বর্জন করেছেন।
জাল ভোটসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও কারচুপির অভিযোগ তুলে নড়াইল-২ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান ভোট বর্জন করেছেন। একই অভিযোগ তুলে ভোট বর্জন করেছেন নড়াইল-১ আসনে ওয়ার্কার্স পার্টির প্রার্থী অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম।

সাতক্ষীরা-১ আসনে তালা উপজেলার মানিকহার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট প্রদানের ঘটনায় সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা নব কুমার পাইনসহ তিনজনকে বহিষ্কার করা হয়েছে। বহিষ্কার অন্য দু’জন হলেন পোলিং অফিসার শাহাজউদ্দিন ও জি এম বারাকাত হুসাইন। ওই আসনের কলারোয়া উপজেলার দেওয়াড়া ইউনিয়নের খোরদো বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ঈগল প্রতীকে তিনটি ভোট দেওয়ায় আবদুস সালাম নামে একজনকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

ঢাকা বিভাগ
কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেওয়ার অভিযোগ তুলে ঢাকা-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. হাবিবুর রহমান ভোট বর্জন করেছেন। নৌকার পক্ষে জাল ভোট দেওয়া, কেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দেওয়া, রিটার্নিং কর্মকর্তাদের অসহযোগিতাসহ নানা অভিযোগে ভোট বর্জন করেছেন মুন্সীগঞ্জ-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী সোহানা তাহমিনা। টাঙ্গাইল-২ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ইউনুছ ইসলাম তালুকদার ওরফে ঠান্ডু ভোট বর্জন করেছেন।

নারায়ণগঞ্জ-২ আসনে আড়াইহাজার উপজেলার রামচন্দ্রদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৬৪ ও ৬৫ নম্বর ভোটকেন্দ্রের ভোট গ্রহণ বাতিল করা হয়েছে। এ ছাড়া বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ওই আসনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আলমগীর সিকাদার লোটন ভোট বর্জন করেছেন।

নরসিংদী-৪ (মনোহরদী-বেলাব) আসনে বেলাব উপজেলার সল্লাবাদ ইউনিয়নের ইব্রাহিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে ভোট বাতিল করা হয়েছে। কিশোরগঞ্জ-২ আসনে নৌকার প্রার্থী আবদুল কাহার আকন্দ কিছু কেন্দ্রে জাল ভোট এবং এজেন্টদের সঙ্গে মারমুখী আচরণের অভিযোগ তুলেছেন। কিশোরগঞ্জ-৫ আসনে নৌকার প্রার্থীর বিরুদ্ধে জাল ভোট ও এজেন্ট বের করে দেওয়ার অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী সুব্রত পাল।

বরিশাল বিভাগ
ঝালকাঠি সদর ও রাজাপুর উপজেলার বিভিন্ন কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়া ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের অপরাধে পাঁচজনকে কারাদণ্ড এবং একজনকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাজাপুর উপজেলার একাধিক ভোটকেন্দ্র থেকে বিভিন্ন অপরাধে তিনজনকে আটক করেছে পুলিশ। তারা নৌকা প্রার্থীর সমর্থক।
ঝালকাঠি-১ আসনের কাঁঠালিয়া উপজেলার একটি কেন্দ্রে জাল ভোট দিতে যাওয়ায় সরোয়ার হোসেন নামে এক যুবককে পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত, অনাদায়ে ১৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দেওয়া হয়েছে।

ঝালকাঠি-২ আসনে নলছিটির মগড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এনামুল হকের বিরুদ্ধে প্রিসাইডিং কর্মকর্তার কাছ থেকে ৫৪টি ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নিয়ে একটি প্রতীকে সিল মারার অভিযোগ উঠেছে। ওই আসনের নলছিটি পৌরসভার সংকরপাশা ভোটকেন্দ্রে খাবার সরবরাহ করায় কাউন্সিলর মানিক খানকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ ছাড়া পার্শ্ববর্তী অনুরাগ কেন্দ্রে জাল ভোট দেওয়ায় মিলন হাওলাদার নামে একজনকে এক মাসের কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনে নৌকা প্রার্থীর সমর্থক আরাফাত নামে এক ব্যক্তিকে দাসহ গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। দুপুরে কলাপাড়া পৌর শহরের খেপুপাড়া মডেল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এদিকে দুমকী উপজেলায় লাঙ্গল প্রতীকে জাল ভোট দেওয়ায় এক নারীসহ ছয়জনকে আটক করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ বিভাগ
কারচুপির অভিযোগ তুলে ময়মনসিংহ-১০ আসনে দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী ভোট বর্জন করেছেন। তারা হলেন অ্যাডভোকেট কায়সার আহমেদ (ঈগল) ও ডা. আবুল হোসেন দীপু (ট্রাক)। এদিকে ওই আসনের গফরগাঁও পৌর শহরের মদিনাতুল উল আলহাজ আকবর হোসেন কওমি মাদ্রাসা ও এতিমখানা কেন্দ্রে প্রকাশ্যে নৌকায় সিল মারা ও নৌকার পক্ষে কাজ করায় প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ও সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তাকে প্রত্যাহার করা হয়েছে। পরে তাদেরসহ নৌকার এক এজেন্টকে হেফাজতে নেয় পুলিশ। এ ছাড়া ময়মনসিংহ-৩ আসনে একটি কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ শেষে ছয়টি ব্যালট বাক্স ছিনিয়ে নেওয়ায় ভোট বাতিল করা হয়েছে। কেন্দ্রটি হলো গৌরীপুর উপজেলার সহনাটি ইউনিয়নের ভালুকাপুর উচ্চ বিদ্যালয়।

জামালপুর-২ (ইসলামপুর) আসনে হরিণধরা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সহকারী প্রিসাইডিং কর্মকর্তা চৌধুরী কুদরত এ খুদাকে আটক করেছে পুলিশ। গত শনিবার রাতে ২৫ হাজার টাকাসহ তাঁকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে স্থানীয়রা। এ ছাড়া ওই আসনের ইসলামপুর উপজেলার ৩০টি ভোটকেন্দ্র থেকে এজেন্টদের বের করে দিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারার অভিযোগ করেছেন জাতীয় পার্টির প্রার্থী মোস্তফা আল মাহমুদ। নেত্রকোনা-৫ আসনের পূর্বধলা উপজেলার বাদে পুটিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকা প্রতীকে জাল ভোট দেওয়ার অভিযোগে তিন কিশোরকে আটক করা হয়েছে।